শিশুর ইসলামিক নামের তালিকা অর্থসহ – ছেলে ও মেয়ে উভয়ের নাম

Rate this post
শিশুর ইসলামিক নামের তালিকা

ভূমিষ্ঠ হওয়া শিশুর নাম রাখার জন্য শিশুর নামের তালিকা প্রায় প্রত্যেক গার্ডিয়ানের প্রয়োজন পড়ে। শিশুর জন্মের পর থেকে সমস্ত দায়িত্ব এসে পড়ে তাঁর পিতা-মাতার উপর। অন্য সকল দায়-দায়িত্বের মতো শিশুর একটি সুন্দর নাম রাখাও তাদের প্রধান দায়িত্বগুলোর মধ্যে পড়ে। তাই আপনি যদি মুসলিম হয়ে থাকেন এবং আপনার সন্তানের জন্য একটি ভালো ও সুন্দর ইসলামিক নাম রাখতে চান তাহলে শিশুদের ইসলামিক নামের তালিকার আজকের পোস্টটি আপনার জন্যই। ( র দিয়ে ছেলেদের ইসলামিক নাম সহ স দিয়ে ছেলেদের সুন্দর ইসলামিক নাম অর্থসহ পড়ুন )

ছেলে বা মেয়ে উভয়ের জন্যই একটি সুন্দর ইসলামিক নাম রাখা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। হতে পারে সদ্য জন্ম নিলো আপনার পরিবারে নতুন সদস্য বা আত্মীয় কারো পরিবারে। কিন্তু সেই মূহর্তে যদি তাদের নিকট শিশুদের ইসলামিক নামের একটি বেশ বড়-সড় তালিকা থাকে, তাহলে সন্তানের নাম রাখার ক্ষেত্রে আর বড় রকম বেগ পেতে হবে না। আমাদের সমাজে নাম রাখা নিয়ে রয়েছে নানা রকম কুসংস্কার। সত্যিকার অর্থে একটি সুন্দর ইসলামিক নাম আনে বৈচিত্র্যতা । আমাদের তবে আমাদের মধ্যে এখন নাম রাখার ক্ষেত্রে একটা ট্রেন্ড দেখা যাচ্ছে, সেটা হলো ছেলে মেয়েদের জন্য আধুনিক নাম চয়েজ করা। বিশেষ করে এই জিনিসটি বেশি ভিজুয়্যাল হলো শহরের টাইপের লোকদের মধ্যে।

শিশুর নামের তালিকা পড়ার পাশাপাশি পড়তে পারেন জেবিন নামের অর্থ কি, আরহাম নামের অর্থ কি, আহনাফ নামের অর্থ কি, আয়ান নামের অর্থ কি, হাসান নামের অর্থ কি, মোহাম্মদ নামের অর্থ কি, জান্নাত নামের অর্থ কি, রাইসা নামের অর্থ কি সহ রাফি নামের অর্থ কি , নুসাইবা নামের অর্থ কি সমন্নিত আর্টিকেল তিনটি পড়তে পারেন। এছাড়াও পড়তে পারেন সাহাবীদের নামগুলো, বাংলা নাম, আনকমন নাম , আরবি নামের তালিকা সহ ছেলে-মেয়েদের ডিজিটাল সুন্দর নাম। ( রিজিক বৃদ্ধির দোয়া বা আমল সম্পর্কে জানুন )

আমাদের ইসলামেও রয়েছেও এরকম হাজারো ছেলে-মেয়েদের আধুনিক নাম। যেগুলো মূলত ইসলাম সম্মত নাম। আবার একইভাবে সেই নামগুলোর অর্থও ইতিবাচক। শিশুদের জন্য যখন নাম চযেজ করবেন, তখন বিশেষ করে অন্তত দুটি দিকের প্রতি বিশেষ নজর রাখবেন। একটি হলো সেই নামটি শিশুদের জন্য ইসলামিক নাম কি-না, আর অন্যটি হলো সেই শিশুর নামটি ইতিবাচক অর্থ বহন করে কি-না। অবশ্যই আপনাকে এই দুইটি দিককে মেইক সিউর করতে হবে এবং তারপর শিশুর জন্য সুন্দর একটি ইসলামিক নাম রাখতে হবে।

শিশুর ইসলামিক নাম – Islamic name of Children

শিশুর ইসলামিক নাম Islamic name of Children

আজকের আর্টিকেলের পুরো অংশ জুড়েই শিশুদের নাম নিয়ে রয়েছৈ সম্পূর্ণ আলোচনা। শিশুদের নাম রাখার ক্ষেত্রে বিশেষ করে পিতা মাতাকে খুবই সচেতন থাকতে হবে। কেননা আপনি যদি আপনার শিশুর নামটি বর্তমানে চলমান আধুনিক নামগুলোর সাথে তাল মিলিয়ে নেতিবাচক অর্থবহ একটি আধুনিক নাম পিক করে থাকেন, তাহলে ঐ শিশু যখন বড় হবে এবং বোঝতে শিখবে, তখন সেই নিশ্চয় তাঁর নামের অর্থ জানতে চেষ্টা করবে। তখন যদি সে তার নামের অর্থগুলো নেতিবাচক বোঝতে পারে, তাহলে তখন সমস্ত দায় আপনাদের নিতে হবে। তাই শিশু সন্তানের নাম রাখার সময় অত্যাধিক সচেতন থাকতে হবে। কোনো রকম ভুল করা চলবে না। যেহেতু মুসলিম ঘরে জন্ম তাই শিশুটির নাম রাখতে হবে ইসলামিক অর্থবহ নাম। আর আমাদের মধ্যে একটি ভুল ধারণা রয়েছে যে, শিশুদের নামটি আরবি হলেই বোধহয় সে নামটি ইসলামিক ভালো একটি নাম! এই ধারণাটি সম্পূর্ণ ভুল। তাই এই সকল ভুল ধারণা থেকে বের হয়ে আপনার শিশুর নাম হিসেবে ভালো সুন্দর একটি ইসলামিক নাম রাখতে হবে একই সাথে শিশুর নামটি যেন ইতিবাচক অর্থবহ হয়। আজকে বিশেষ করে আমরা শিশুর ইসলামিক নামগুলো দুই ভাবে তুলে ধরতে চেষ্টা করবো। সেগুলো হলো-

  • ছেলে শিশুর ইসলামিক নাম
  • মেয়ে শিশুর ইসলামিক নাম

এই দুই পার্টে আশা করি শিশুদের ইসলামিক নামগুলো কভার করার চেষ্টা করবো। তাই পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

ছেলে শিশুর ইসলামিক নাম – Islamic name of the boy child

ছেলে শিশুর ইসলামিক নাম Islamic name of the boy child

শিশুদের নাম সম্পর্কে উপরের ইতমধ্যে অনেক আলোচনা হয়েছে। আজকের আর্টিকেলেটি যারা যারা পড়ছেন, তাদের অধিকাংশই আপনাদের শিশু সন্তানের (হোক সেটা ছেলে শিশু) জন্য সুন্দর একটি ইসলামিক নাম খুঁজছেন। তারই ধারাবাহিকতায় শিশুদের ইসলামিক নামের তালিকা পোস্টে রেখেছি ছেলে শিশুর ইসলামিক নাম পর্বটি। এখানে উল্লেখিত প্রতিটি নাম ছেলে শিশুর জন্য বেশ ভালো এবং ইসলামিক নাম। এখান থেকে আপনি আপনার ছেলে শিশুর জন্য যেকোনো একটি নাম কোনো রকম সংকোচন ছাড়াই চয়েজ করতে পারেন। কেননা এখানে উল্লেখিত নামগুলোর সবগুলো ইসলামিক নাম এবং একই সাথে পজেটিব বা ইতিবাচক অর্থবহ নাম। তাই যদি আপনি সত্যিকার অর্থেই ছেলে শিশুর জন্য একটি ভালো ইসলামিক নাম খুঁজে থাকেন, তাহলে আজকের পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়তে পারেন। তাহলে চলুন আলোচনা দীর্ঘায়িত না করে ছেলে শিশুর ইসলামিক নামের তালিকা টি পড়া যাক-

  • হাম্মাদ = Hammad = অধিক প্রশংসাকারী
  • হামদান = Hamdans = প্রশংসাকারী
  • সাফওয়ান = Safowan = স্বচ্ছ শিলা
  • মামদুহ = Mumduh = প্রশংসিত
  • নাবহান = Nabhan = খ্যাতিমান
  • নাবীল = Nabil  = শ্রেষ্ঠ
  • নাদীম = Nadim = অন্তরঙ্গ বন্ধু
  • জালাল =  Jalal = মহিমা,
  • কফিল = Kafil = জামিন দেওয়া,
  • করিম = Karim = দানশীল,সম্মানিত,
  • কাশফ = Kashof = উন্মুক্ত করা,
  • কামাল = Kamal = যোগ্যতা,সম্পূর্ণতা,
  • গণী = Goni = ধনী,
  • শফিক = Shafiq = দয়ালু
  • তানভীর = Tanvir = আলোকিত
  • শাদমান = Shadman = হাসিখুশী
  • সুলতান আহমদ = Sultan Ahmmed = প্রশংসিত সাহায্যকারী
  • সাইফুদ্দীন = Saifuddin = দ্বীনের সূর্য্য
  • সাইফুল হক = Saiful Haq = প্রকৃত তরবারী
  • সাইফুল হাসান = Saiful Hasan = সুন্দর কল্যাণ
  • সাইফুল ইসলাম = Saiful Islam = ইসলামের প্রিয়
  • সাইয়্যেদ = Saiyed = সরদার
  • সৈয়দ আহমদ = Saoid Ahmmed = প্রশংসিত ভয় প্রদর্শক
  • সাখাওয়াত হুসাইন = Sakhawat Hossain = সুন্দর আলোবিচ্ছুরক
  • সাকিব সালিম = Sakib Salim = দীপ্ত স্বাস্থ্যবান
  • সালাউদ্দীন = Salauddin = দ্বীনের ভদ্র
  • সালাম = Salam = নিরাপত্তা
  • সলীমুদ্দীন = Salimuddin = দ্বীনের সাহায্য
  • সামীম  = Samim = চরিত্রবান
  • সামিন ইয়াসার = Samin Yasir = মুল্যবান সম্পদ
  • গানেম = Ganem = গাজী, বিজয়ী
  • খাত্তাব = Khattab = সুবক্তা
  • সাবেত = Sabet = অবিচল
  • শাকের = Saker = কৃতজ্ঞ
  • তাযিন = Tajin = সুন্দর
  • ইমাদ = Emad = খুঁটি
  • আবরার = Abrar = ন্যায়বান,
  • আহসান = Ahsan = উৎকৃষ্টতম,
  • আহনাফ = Ahnaf = ধার্মিক,
  • বাসিত = Basit = স্বচ্ছলতা দানকারী,
  • গিয়াস = Gias = সাহায্য,
  • ফয়সাল = Faysal = বিচারক,
  • বোরহান = Borhan = প্রমাণ,
  • গালিব = Galib = বিজয়ী,
  • হালিম = Halim = ভদ্র,
  • গোলাম মুহাম্মদ = Golam Muhammed = মুহাম্মদের দাস
  • গোলাম কাদের = Golam Kader = কাদেরের দাস ইত্যাদি।
  • উসামা = Usama = সিংহ
  • হামদান = Hamdan = প্রশংসাকারী
  • লাবীব =  Labir = বুদ্ধিমান
  • রাযীন = Rajin = গাম্ভীর্যশীল
  • রাইয়্যান = Raiyan = জান্নাতের দরজা বিশেষ
  • রাগীব আনসার = Ragib Ansar = আকাঙ্গ্ক্ষিত ব্ন্ধু
  • রাগীব আসেব  = Ragib Aseb = আকাঙ্গ্ক্ষি যোগ্যব্যক্তি
  • রাগীব আশহাব = Ragib Ashhab = আকাঙ্গ্ক্ষিত বীর
  • রাগীব বরকত = Ragib Barkot = আকাঙ্গ্ক্ষিত সৌভাগ্য
  • রাগীব হাসিন = Ragib Hasin = আকাঙ্গ্ক্ষিত সুন্দর
  • রাগীব ইশরাক = Ragib Esrak = আকাঙ্ক্ষিত সকাল
  • রাগীব মাহতাব = Ragib Mahtab = আকাঙ্ক্ষিত চাঁদ
  • রাগীব মোহসেন = Ragib Mohsen = আকাঙ্ক্ষিত উপকারী
  • রাগীব মুবাররাত = Ragib Mubararat = আকাঙ্ক্ষিত ধার্মিক
  • রাগীব মুহিব = Ragib Muhib = আকাঙ্ক্ষিত প্রেমিক
  • রাগীব নাদের = Ragib Nader = আকাঙ্ক্ষিত প্রিয়
  • সাজেদর রহমান = Sajedor Rahman = দয়াময়ের সামনে মস্তকঅবনমিতকারী
  • সাব্বীর আহমেদ = Sabbir = প্রশংসিত সাহায্যকারী
  • সালিম শাদমান = Salim Shadman = স্বাস্থ্যবান আনন্দিত
  • রাদ শাহামাত = Rad Shamat = বজ্র সাহসিকতা
  • রাব্বানী = Rabbani = স্বর্গীয়
  • রাব্বানী রাশহা = Rabbani Rashada = স্বর্গীয় ফলের রস
  • রবীউল হাসান = Robiul Hasasn = ইসলামের বসন্তকাল
  • রফিকুল হাসান = Rafiqul Hasan = সুন্দেরের উচ্চ
  • রফিকুল ইসলাম = Rafiqul Islam = ইসলামের মহত্ত্ব
  • রফিউদ্দীন = Rofiuddin = দ্বীনের সুগন্ধী ফুল
  • রাগীব আবিদ = Ragib Abid = আকাঙ্গ্ক্ষিত এবাদতকারী
  • রাগীব আখলাক = Ragib Akhlak = আকাঙ্গ্ক্ষীত চারিত্রিক গুনাবলি
  • রাগীব আখইয়ার = Ragib Akhyear = আকাঙ্গ্ক্ষি চমৎকার মানুষ
  • রাগীব আখতার = Ragib Akhtar =  আকাঙ্ক্ষিত তারা
  • রাগীব আমের  = Ragib Amer  = আকাঙ্গ্ক্ষিত শাসক
  • রাগীব আনিস = Ragib Anis = আকাঙ্গ্ক্ষিত বন্ধু
  • রাগীব আনজুম = Ragib Anjum =  আকাঙ্ক্ষিত তারা
  • রাগীব নিহাল = Ragib Nihal = আকাঙ্ক্ষিত চারা গাছ
  • রাগীব নূর = Ragib Nur = আকাঙ্ক্ষিত আলো
  • রাগীব রহমত = Ragib Rahmot  = আকাঙ্ক্ষিত দয়া
  • রাগীব রওনক = Ragib Rawnok = আকাঙ্ক্ষিত সৌন্দর্য
  • রাগীব সাহরিয়ার = Ragib Shariyar = আকাঙ্ক্ষিত রাজা
  • রাগীব শাকিল = Ragib Shakil  = আকাঙ্ক্ষিত সুপরুষ
  • রাগীব ইয়াসার = Ragib Yasir = আকাঙ্ক্ষিত সম্পদ
  • রাগীব নাদিম = Ragib Nadim = আকাঙ্ক্ষিত সংগী
  • রাশীদ = Rashid = সরল,শুভ
  • রাহীম = Rahim = দয়ালু
  • রাহমান = Rahman = দয়ালু
  • রহমত = Rahmot = রহমত
  • রায়হানুদ্দীন = Rayhanuddin = দ্বীনের বিজয়ী
  • রঈসুদ্দীন = Raisuddin = দ্বীনের সাহায্যকারী

ছেলে শিশুর নামের বিশাল তালিকা টি পড়া শেষ। এখানে বেশ অনেক বড় একটি নামের তালিকা দিয়েছে। যদি কোনো মা-বাবা বা গার্ডিয়ান তাঁর সন্তান বা আত্মীয়দের জন্য ভালো ও সুন্দর একটি ইসলামকি নাম সিলেক্ট করতে চায়, তাহলে সে এখানে উল্লেখিত নামের তালিকাটি দেখতে ও পড়তে পারে। এখানে উল্লেখিত প্রতিটি প্রতিটি নাম হলো ছেলে শিশুর জন্য ইসলামিক নাম। এবং প্রতিটি নাম বাঁচাইকৃত। একই সাথে নামগুলো ইতিবাচক অর্থবহনকারী নাম। তাই আপনার ছেলে শিশুর জন্য সবচেয়ে ভালো ও আকর্ষণীয় নামটি সিলেক্ট করতে পারেন।

মেয়ে শিশুর ইসলামিক নাম – Islamic name of the girl child

মেয়ে শিশুর ইসলামিক নাম  Islamic name of the girl child

মেয়ে শিশুর ইসলামিক নামের তালিকাটিও Islamic name of the girl child বেশ বড়। যখনই একজন মা-বাবা তাদের মেয়ে সন্তানের জন্য ইসলামিক একটি সুন্দর নাম রাখতে চায়, তখন তাদের কয়েকটি বিষয় মাথায় রেখে নাম সিলেক্ট করা উচিত। অন্যথায় ইসলামিক নাম রাখতে গিয়ে কখন যে বিরূপ পরিবেশ সৃষ্টিকারী একটি নাম চয়েজ করবে তারা নিজেই বলতে পারবে না। তাই শিশুদের নাম চয়েজে সর্বোচ্চ চেষ্টা করতে হবে সকল কিছু মেনে একটি ভালো নাম চয়েজ করতে। এখন বলা হতে পারে নাম চয়েজে আবার কি কি বিষয় মাথায় রাখতে হবে। আচ্ছা, সবচেয়ে সহজ দুটি জিনিস মাথায় নিয়ে নাম চয়েজ করতে হবে। তাহলে আপনিও মেয়ে শিশুর ইসলামিক নাম খুঁজে বের করতে বেশি বেগ পেতে হবে না। সে জিনিস দুটি হলো- একটি হলো নামটি ইসলামিক নাম কি-না, তা শিশুর নাম রাখার পূর্বেই সিউর হওয়ার ট্রাই করবেন, আর অন্যটি হলো শিশুর সেই নামটির অর্থ কি। বিশেষ করে অর্থের দিকটিকে বেশি প্রাধান্য দিতে হবে। আমাদের মাঝে অনেকের নাম রয়েছে, যাদের নামগুলো শুনতে প্রায় ইসলামিক নাম মনে হলেও বাস্তবিক অর্থে তা ইসলামিক নাম নয়। আবার একই ভাবে সেই নামগুলোর অর্থ হয় নেতিবাচক অর্থ। তাই এই সকল দিক বিবেচনা করে একটি ভালো সুন্দর নাম রাখতে হবে শিশুদের জন্য। তাহলে চলুন এই পর্বে মেয়ে শিশুর ইসলামিক নাম  সম্পর্কে জানা যাক। এখানে বিরাট একটি মেয়ে শিশুর ইসলামিক নামের তালিকা দেওয়া হয়েছে। চলুন পড়া যাক-

  • তাসনিয়া = Tasnia =  প্রশংসিত
  • তাহসীনা   = Tahsina =   উত্তম
  • তাহিয়্যাহ  = Taiyah =   শুভেচ্ছা
  • তোহফা = Tohfa =   উপহার
  • তাখমীনা = Takhmina =   অনুমান
  • তাযকিয়া   = Tajkia = পবিত্রতা
  • তাসলিমা = Taslima =   সর্ম্পণ
  • তাসমিয়া  = Tasmia =   নামকরণ
  • তাসনীম = Tasnim = বেহেশতের ঝর্ণা
  • তাসফিয়া = Tasfia = পবিত্রতা
  • তাসকীনা = Taskina = সান্ত্বনা
  • দীবা   = Diba =   সোনালী
  • বিলকিস   = Bilkis =   রাণী
  • আনিকা  = Anika =  রুপসী
  • তাবিয়া   = Tabia =   অনুগত
  • তাসমীম = Tasmim = দৃঢ়তা
  • তাশবীহ = Tashbih = উপমা
  • তাকিয়া  = Takia =   চরিত্র
  • তাকমিলা = Taklima = পরিপূর্ণ
  • তামান্না = Tamanna = ইচ্ছা
  • তামজীদা = Tamjida = মহিমা কীর্তন
  • আফরা = Afra =সাদা
  • সাইয়ারা = Saiyara =তারকা
  • আফিয়া = Afia = পুণ্যবতী
  • মাহমুদা = Mahmuda = প্রশংসিতা
  • রায়হানা = Rayhana = সুগন্ধি ফুল
  • হাসিনা = Hasina =সুন্দরি
  • হাবীবা = Habiba =প্রিয়া
  • ফারিহা = Faria = সুখি
  • দীবা = Diba = সোনালী
  • বিলকিস = Bilkis = রাণী
  • আনিকা =Anika = রুপসী
  • তাবিয়া = Tabia = অনুগত
  • তাবাসসুম = Tabassum = মুসকি হাসি
  • তাসনিয়া = Tasnia = প্রশংসিত
  • তাহসীনা = Tahsina = উত্তম
  • তাহিয়্যাহ = Taiyah = শুভেচ্ছা
  • তোহফা = Tohfa = উপহার
  • তাখমীনা = Takhmina = অনুমান
  • তাযকিয়া = Tajkiya = পবিত্রতা
  • তাসলিমা = Taslima = সর্ম্পণ
  • তাসমিয়া = Tasmia = নামকরণ
  • তাসনীম = Tasnim = বেহেশতের ঝর্ণা
  • তাসফিয়া = Tasfiya = পবিত্রতা
  • শামিখা = Shamikha  = সুন্দরী
  • শারিকা  = Sahriqa  = দৃঢ় / উচ্চ / উন্নত / মহিরূপ
  • শাম্মা  = Shamma  = উজ্জল, মেয়েদের আনকমন নামের তালিকা।
  • শায়মা  = Shayma  = সুন্দর
  • শাফীকা = Shafiqa  = সুপারিশ কারিনী
  • শাকীলা  = Shakila  = স্নেহশীলা
  • হানিয়া = Hania =  সুখী, তৃপ্ত, খুশী
  • হামীমা = Hamima =  অন্তরঙ্গ বান্ধবী
  • হাসানা = Hasana =  সুন্দর, সুকর্ম
  • হাবীবা = Habiba =  প্রিয়, প্রিয়তমা, সাহাবীর নাম
  • সালীমা  = Salima =  সুস্থ
  • সারাফ ওয়াসিমা  = Sharaf Owasima =  গানরত সুন্দরী
  • সায়ীদা  = Saida =  পুন্যবতী
  • সাবিহা  = Sabiha =  রূপসী / দ্রুতগামি অশ্ব
  • সাকেরা  = Sakera =  কৃতজ্ঞতা প্রকাশকারী, পাকিস্তানি মেয়ে শিশুর নাম
  • সানজীদাহ  = Sanjidah =  বিবেচক
  • সীমা / সিমা  = Sima =  কপাল, দুই অক্ষরের মেয়েদের আধুনিক নাম।
  • সুবাহ  = Subha =  প্রভাত
  • সুফিয়া  = Sufia =  আধ্যাত্মিক সাধনাকারী
  • হুমাইরা = Humaira =  অর্থ – লাল রঙের পাখি
  • হাফেজা = Hafeza =  সংরক্ষণকারিণী, কোরান হেফজকারিণী
  • শামসিয়া = Shamsia  = প্রদীপ
  • শাহবা  =  Shaba  = ছাতা
  • শাহলা  =  Shahla  = বাঘিনী
  • তাসকীনা = Taskina = সান্ত্বনা
  • তাসমীম = Tasmim = দৃঢ়তা
  • তাশবীহ = Tashbih = উপমা
  • তাকিয়া  = Takia =  শুদ্ধ চরিত্র
  • তাকমিলা = Taklima = পরিপূর্ণ
  • তামান্না = Tamanna = ইচ্ছা
  • তামজীদা = Tamjida = মহিমা কীর্তন
  • তাহযীব = Tahjib = সভ্যতা
  • তাওবা = Tawba = অনুতাপ
  • তানজীম = Tanjim = সুবিন্যস্ত
  • তাহিরা = Tahira = পবিত্র
  • তবিয়া = Tobia = প্রকৃতি
  • তরিকা = Torika = রিতি-নীতি
  • তাইয়্যিবা = Taiyiba = পবিত্র
  • তহুরা = Tohura = পবিত্রা
  • তুরফা = Turfa = বিরল বস্তু
  • তাহামিনা = Tahamina = মূল্যবান
  • তাহমিনা = Tahmina = বিরত থাকা
  • তানমীর  = Tanmir =  ক্রোধ প্রকাশ করা
  • ফরিদা = Forida = অনুপম
  • ফাতেহা = Fateha = আরম্ভ
  • ফাজেলা = Fajela = বিদুষী
  • ফাতেমা = Fatema = নিষ্পাপ
  • ফারাহ = Farah = আনন্দ
  • ফারহানা = Farhana = আনন্দিতা
  • ফারহাত = Farhat = আনন্দ
  • ফেরদাউস  = Ferdaus =   বেহেশতের নাম
  • ফসিহা = Fsiha = চারুবাক
  • ফাওযীয়া = Fawjiya = বিজয়িনী
  • মালিহা = Maliaha = রুপসী
  • ফারজানা = Farjana = জ্ঞানী
  • পারভীন = Parbin = দীপ্তিময় তারা
  • ফিরোজা = Piroja = মূল্যবান পাথর
  • ফজিলাতুন = Pojilatun = অনুগ্রহ কারিনী
  • ফাহমীদা = Pahmida = বুদ্ধিমতী
  • ফাবিহা বুশরা = Fabiha Busra = অত্যন্ত ভাল শুভ
  • মোবাশশিরা = Mubashsira = সুসংবাদ বাহী
  • মাজেদা = Majeda = সম্মানিয়া
  • মাদেহা = Madeha = প্রশংসা
  • মারিয়া = Maria = শুভ্র
  • মাবশূ রাহ = Mabush Rah = অত্যাধিক সম্পদশালীনী,
  • মুতাহাররিফাত = Mutahar rifat = অনাগ্রহী
  • মুতাহাসসিনাহ = Mutahassinah = উন্নত
  • মুতাদায়্যিনাত = Mutadainat = বিশ্বস্ত ধার্মিক মহিলা,
  • মাহবুবা = Mahbuba = প্রেমিকা
  • মুহতারিযাহ = Muhtarijah = সাবধানতা অবলম্বন কারিনী

উপরের হিউজ পরিমাণ মেয়ে শিশুর ইসলামিক নাম এর তালিকাটি পড়লেন। আশা করি মেয়ে শিশুর নাম সম্পর্কে ভালো একটি পরিষ্কার ধারণা পেয়েছেন। একই সাথে এখান থেকে ভালো ও সুন্দর একটি মেয়ের নাম পছন্দ করতে পারবেন। যদি এখনো কোনো একটি মেয়ে শিশুর নাম সিলেক্ট করতে না পেরে থাকেন, তাহলে দয়া করে পুরো পোস্টটি পুনরায় আবার মনোযোগ সহকারে পড়ুন। আশা করি এখান থেকে মেয়ে শিশুর জন্য ইসলামিক ভালো একটি অর্থবহ নাম পিক করতে পারবেন।

শিশুর নাম নিয়ে শেষ কথা – last word on the baby’s name

শিশুর নাম নিয়ে শেষ কথা  last word on the baby’s name

শিশুর ইসলামিক নাম Islamic name of Baby নিয়ে সবার নিকট রয়েছে নানা আগ্রহ । মূলত সব গার্ডিয়ানই চায় তাদের শিশুর জন্য বেশ ভালো একটি ইসলামিক নাম রাখতে। কিন্তু অনেকের মাঝে পরিপূর্ণ ইসলামিক জ্ঞান না থাকায়, অধিকাংশ সময় গার্ডিয়ানরা যে ভুলটি করে থাকে, সেটি হলো ইসলামিক নাম ভেবে একটি নন-ইসলামিক অথবা নেতিবাচক অর্থবহ নাম সিলেক্ট করে ফেলে। তাই যখনই শিশুর জন্য নাম চয়েজ করবেন তখন বিশেষ করে দুটি দিককে প্রাধান্য দিবেন। যদিও আর্টিকেলের শুরুতে এটি নিয়ে আলোচনা করেছি, তারপরও পাঠকদের সুবিধার্থে আবারও তা নিয়ে আলোচনা করা হলো। যখন শিশুর জন্য নাম রাখতে যাবেন, তখন প্রথমে দেখবেন নামটি ইসলামিক নাম কিনা। সেই নামের উৎপত্তি স্থল কোথায়। যখন সিউর হবেন যে নামটি ইসলামিক নাম তখন আপনাকে দেখতে হবে সেই নামটির বাংলা অথবা আরবি অর্থ কি। অর্থের দিকে অবশ্যই বিশেষ একটি গুরুত্ব দিবেন। কেননা সবাই এই ভুলটিই করে থাকে।  অর্থ নিয়ে কোনো রকম চিন্তা করে না। ফলফ্রসু, আধুনিক ইসলামিক নাম রাখতে গিয়ে একটি নেতিবাচক অর্থবহ নাম সিলেক্ট করে ফেলে। তাই এখন থেকে আপনারা যখন শিশুর জন্য নাম চয়েজ করবেন, তখন অবশ্যই এই দুটি দিকের প্রতি বিশেষ নজর দিবেন। আজকের আর্টিকেলে আপনার ছেলে ও মেয়ে শিশুর বিস্তর দুটি নামের তালিকা আলাদা আলাদা পড়লেন। আশা করি ইতিমধ্যে এখান থেকে যেকোনো একটি সুন্দর নাম আপনার শিশুর জন্য চয়েজ করেছেন। যদি এখনো কোনো নাম চয়েজ করতে না পেরে থাকেন, তাহলে দয়া করে পুনরায় শিশুর ইসলামিক নামের তালিকা পোস্টটি আবার পড়ুন।

শিশুর ইসলামিক নামের তালিকা সম্পর্কে আরো জানতে

About রবীন্দ্র

Check Also

আনকমন নাম

আনকমন নাম | ছেলে-মেয়েদের জন্য আনকমন অসংখ্য নাম

ছেলে ও মেয়েদের জন্য যদি কিছু আনকমন নাম – Uncommon Name আপনার সামনে নিয়ে আসি তখন আপনার ফিলটা কেমন হবে? নিশ্চয় স্বাভাবিক কোনো রকম ফিল হবে না, সামান্য হলেও উদ্ধেগী একটি ফিল আপনার অন্তরে কাজ করবে! ঠিক এই কারণেই আজকের আমাদের এই আনকমন নাম এর বিশেষ আর্টিকেলটা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.