রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স – ঝটপট ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স

Rate this post
রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স

রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স বা ঝটপট ব্যালেন্স আমাদের নিত্য দিনের প্রয়োজনে প্রায়ই সময় রবি অফিস থেকে ধার নিতে হয়। সাধারণত ইমারেজেন্সি বা গুরুত্বপূর্ণ কোনো সময়ে আমাদেরকে রবির এই ঝটপট ব্যালেন্স সার্ভিসটি গ্রহণ করতে হয়। বর্তমানে রবির সক্রিয় বা অ্যাক্টিভ গ্রাহক সংখ্যা হলো ৫ কোটি ১৮ লাখ+ এবং দিন দিন এই সংখ্যাটা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। যেহেতু রবি তাঁর সেবার মান অনেকাংশে তুলনামূলকভাবে উন্নত করছে এবং তা বেগমান রেখেছে, তাই ধরে নেওয়াই যায় যে, অ্যাক্টিব ব্যবহারকারীর সংখ্যাটা ১০ কোটিতে পৌঁছাতে বেশ অল্প সময় লাগবে। যেহেতু ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাড়ছে, সেহেতু রবিতে টক টাইম হতে শুরু করে ডাটা ব্যবহারও পূর্বের চেয়ে ক্রমশ বাড়বে। এমতোবস্থায় ব্যবহারকারীদের ইমার্জেন্সী ব্যালেন্সের প্রয়োজন হতে পারে যেকোনো সময়। চলাপেরা-দূর্ঘটনা সহ নানা রকম অবস্থায় রবি ঝটপট ব্যালেন্স বেশ উপকারক হিসেবে কাজ করে। রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নাম সার্ভিসটি দ্ধারা গ্রাহকগণ উপকৃত হওয়ার পাশাপাশি রবির প্রতি ব্যাপক আস্থা তৈরি হচ্ছে। ( সকল সিমের প্রয়োজনীয় কোডগুলো পড়ুন )

ধরুণ আপনি এমন কোথায়ও গেলেন, যেখানে কোনো রকম ফ্লেক্সিলোড করার সুযোগ-সুবিধা নেই এবং কি আপনার নিকট ব্যালেন্স ইন করারও সুযোগ নেই। যেটুকু রবি ব্যালেন্স ছিল, সবটুকু কথা বলে অথবা অন্যভাবে শেষ হয়ে গেছে। এমতোবস্থায় যদি আপনি সাথে সাথেই কারো সাথে কথা বলতে কিংবা প্রয়োজনীয় ডাটা ক্রয় করার জন্য ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পেয়ে যান, তাহলে ব্যাপারটা কেমন হয়? ঠিক এই বিষয়টি নিয়েই আজকের আমাদের এই আর্টিকেলটি। আজকের আর্টিকেলে আমরা রবি ইমারজেন্সী ব্যালেন্স বা ঝটপট ব্যালেন্স সহ আনুসাঙ্গিক সকল বিষয় নিয়ে কথা বলবো। আলোচনা করা হবে কিভাবে আপনি রবি অফিস থেকে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পেতে পারেন, রবি ইমারজেন্সী ব্যালেন্স কিভাবে বন্ধ করবেন, কত টাকা ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিয়ে আসবেন সহ এরকম টাইপের A-Z তথ্য। তাই চলুন, জানা যাক, রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স সম্পর্কে বিস্তারিত। ( রবি নতুন সিম এর অফারগুলো দেখে নিন )

রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাওয়ার নিয়ম

রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাওয়ার নিয়ম

রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাওয়ার শত শত নিয়ম নেই। মাত্র দুটি নিয়মে আপনি রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পেতে পারেন। যেহেতু রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর প্রচলনটা শুরু হয়েছে গুরুত্বপূর্ণ মূহর্তের জন্য, তাই যদি কোনো কারণে আপনারও প্রয়োজন বোধ হয় রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর, তাহলে এখানে  উল্লেখিত নিয়মগুলো অনুসরণ করতে পারেন। সাধারণত রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স আমরা দুই ভাবে নিতে পারি। এগুলো হলো-

  • কোড ডায়াল এর মাধ্যমে রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাওয়া
  • রবি অ্যাপস এর মাধ্যমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাওয়া

মূলত এই দুইভাবেই আপনি রবি অফিস থেকে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স বা ঝটপট ব্যালেন্স পেতে পারেন। তাই যদি এমন কোনো রকম পরিস্থিতে আটকে যান অথবা পড়েন, তাহলে আপনিও নিতে পারেন রবি ঝটপট ব্যালেন্স। এখন প্রশ্ন আসতে পারে যে, কিভাবে আপনি রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিবেন এই দুই পদ্ধতিতে? আজকের আর্টিকেলে আমরা এই দুই পদ্ধতি বা উপায় সম্পর্কে অবগত হবো যে, কিভাবে আমরা রবি ইউজার বা ব্যবহারকারীরা রবি কোড ডায়াল অথবা অ্যাপস এর মাধ্যমে রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পেতে পারি। সুতরাং চলুন তাহলে রবি ইমারজেন্সি বা ঝটপট ব্যালেন্স পাওয়ার নিয়মগুলো সম্পর্কে সম্পূর্ণ ডিটেইলস জানা যাক।

কোড ডায়াল এর মাধ্যমে রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাওয়া

কোড ডায়াল এর মাধ্যমে রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাওয়া

আপনি যদি রবি ইউজার বা ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন, তাহলে আপনিও রবি অফিস থেকে সরাসরি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পেতে পারেন খুব সহজেই। এই তথ্যটি প্রায় সবাই জানলেও সংখ্যালঘু ব্যবহারকারী এই সম্পর্কে বেশ অজ্ঞ। এছাড়াও বাকিসব ব্যবহারকারীরা ব্যাপারটি সম্পর্কে অবগত থাকলেও কিভাবে রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পেতে হয়, সে সম্পর্কে জানে না। তাই আজকের আর্টিকেলের এই পর্বে আমরা জানার চেষ্টা করবো যে, কিভাবে রবি ডায়াল কোড ব্যবহার করে আমরা অফিস থেকে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পেতে পারি। চলুন তাহলে স্টেপ বাই স্পেট জানা যাক যে, কিভাবে আমরা  কোড ডায়াল এর মাধ্যমে রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পেতে পারি।

  • প্রথমে আপনার মোবাইলের ডায়াল অপশানে চলে যাবেন।
  • এরপর আপনার মোবাইল থেকে *8811*1# নাম্বার অথবা *123*007# নাম্বারগুলো তুলুন।
  • এবার ডায়াল করুণ।
  • এখন রবি কর্তৃপক্ষ আপনার অ্যাক্টিভিটিস এর উপর ডিপেন্ড করে আপনার রবি নাম্বারে সাথে সাথে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাঠিয়ে দিবে।
  • এটা হতে পারে ১০ টাকা থেকে শুরু করে ১০০ টাকা পর্যন্ত।
  • ব্যাস, এসে গেল আপনার রবি মোবাইল নাম্বারে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স।

এভাবেই মূলত কোড ডায়াল করে আমরা রবি থেকে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পেতে পারি। হতে পারে এটি  ১০ টাকা বা এর বেশি। কিন্তু আপনি যদি এখানে উল্লেখিত নিয়মটি ফলো করে কোড ডায়াল করুণ আপনার রবি মোবাইল নাম্বার হতে, তাহলে আপনি সাথে সাথেই পেয়ে যাবেন নির্দিষ্ট একটি পরিমাণ ইমারজেন্সি ব্যালেন্স। যেহেতু কোড ডায়াল এর মাধ্যমে রবি ইমারজেন্সি টাকা পাওয়ার বিষয়টি বোঝতে পারলাম, তাহলে চলুন এবার জানা যাক, কিভাবে রবি অ্যাপস এর মাধ্যমে আমরা ঝটপট ব্যালেন্স পেতে পারি।

রবি অ্যাপস এর মাধ্যমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাওয়া

রবি অ্যাপস এর মাধ্যমে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাওয়া

Robi কর্তৃপক্ষ বর্তমানে নানাবিধ কারণে তাদের ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাওয়ার সুবিধাটুকু অ্যাপস এর মধ্যে বন্ধ রেখেছে। যে কারণে আজকের আর্টিকেলে আমরা উল্লেখ করতে না পারায় আন্তরিকভাবে দুঃখিত। পুনরায় আবার যদি রবি কর্তৃপক্ষ তাদের সার্ভিসটুকু আবার অ্যাপস এর মাধ্যমে চালু করে থাকে, তাহলে অবশ্যই আমরা আমাদের এই পোস্টে তা আপডেট করে অ্যাড করে দিবো। তাই অবশ্যই কেউ মানমানিল্য হবেন না।

রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স দেখার নিয়ম

রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স দেখার নিয়ম

সাধারণত আমরা শুধুমাত্র রবি থেকে ইমারজেন্সি টাকা এনে কত টাকা ব্যবহার করেছি বা ইমারজেন্সি কত টাকা রয়েছে, সে দিকে নজর দেই না। বেশিরভাগে সময়ে এ রকম ঘটে থাকে। যে বিধায়, এখন সচেতন অনেকে তাদের ব্যালেন্স সহ নানা রকম তথ্য জানতে চায়। যেমন অনেকে তার ইমারজেন্সি ব্যালেন্স, মিনিট অথবা ডাটা কতটুকু রয়েছে, সে তথ্যটুকু জানতে চায়। কিন্তু সমস্যা হলো নির্দিষ্ট সেই কোড সম্পর্কে না জানায় তাঁরা দেখতে বা জানতে পারে না। তাই এই পার্টে জানার চেষ্টা করবো রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স দেখার নিয়ম পাশাপাশি দেখবো কিভাবে ইমারজেন্সি মিনিট ও ডাটা দেখতে হয়। চলুন তাহলে জানা যাক রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স দেখার নিয়ম সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ কোডগুলো-

  • প্রথমে আপনি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নেওয়ার পূর্বে দেখতে পারেন যে আপনি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স পাওয়ার যোগ্য কি-না। সেটি দেখতে আপনাকে *8# ডায়াল করতে হবে।
  • *1# বা *222# ডায়াল করে রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স চেক করতে পারেন। এভাবে আপনার গ্রীহিত রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স চেক দিতে পারেন।
  • আর যদি ডাটা দেখতে চান, তাহলে *8444*88# ডায়াল করে আপনি রবির ডাটা দেখতে পারেন।

এভাবেই মূলত আপনি আপনার রবি নাম্বারের ইমারজেন্সি সকল ধরনের তথ্য পেতে পারেন। উপরোক্ত কোডগুলো হলো বিশেষ করে রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স সহ আনুসাঙ্গিক তথ্য জানার কোড সমূহ। তাই যদি আপনি কোনো সময় রবি থেকে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে চান এবং কোন উপায়ে বা  কি ধরণের কোড ডায়াল করে টাকা গ্রহণ করবেন, তা না জেনে থাকেন, তাহলে উপরোক্ত আর্টিকেলটুকু পড়লেই আশা করি ব্যাপারটি আপনার নিকট খুবই সহজ হয়ে যাবে। আর ইমারজেন্সি ব্যালেন্স বা টাকা গ্রহণের পর টাকা কিভাবে চেক দিবেনা সে সম্পর্কেও বিস্তারিত এখানে উল্লেখ করা হয়েছে।

রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স সম্পর্কে শেষ কথা

রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স সম্পর্কে শেষ কথা

যেহেতু আজকের আর্টিকেলের মূল বিষয় বস্তু হলো রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স সম্পর্কিত, তাই আর্টিকেলে পুরো অংশটুকু জুড়ে ছিল রবি ঝটপট বা ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিয়েই। আশা করি আজকের আর্টিকেলটি দ্ধারা রবি সকল গ্রাহক তথা যারা যারা এখন অথবা ভবিষ্যৎ এ ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে হবে, তাঁরা বেশ ভালো ভাবে ‍উপকৃত হবে। আজকের আর্টিকেলে আমরা শিখেছি কিভাবে যে কেউ তাঁর রবি মোবাইল নাম্বারে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিয়ে আসতে পারে। এছাড়া আরো শিখেছি, যদি আমরা ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিয়েও থাকি, তাহলে কিভাবে তা চেক দিতে পারি। সামগ্রিকভাবে চিন্তা করলে, আজকের আর্টিকেলটি দ্ধারা আমরা শিখেছি, রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স সম্পর্কিত সমস্ত তথ্য। রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স সহ ডাটা কিভাবে চেক দিতে হয়, তাও আজকের আর্টিকেল দ্ধারা শিখেছি। ডাটা সহ ব্যালেন্স চেক দেওয়ার কৌশল বা উপায় জেনে অনেক রবি গ্রাহক ‍উপকৃত হবে। আশা করি আজকের আর্টিকেলটি দ্ধারা রবি ইমারজেন্সি গ্রীহিত গ্রাহকরা বেশ ভালোভাবে উপকৃত হবে।

রবি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স সম্পর্কে আরো জানতে

About রবীন্দ্র

Leave a Reply

Your email address will not be published.